ভূমিকম্পের ফলে পানি রূপান্তরিত হয় স্বর্ণে!

ভূমিকম্পের ফলে পানি রূপান্তরিত হয় স্বর্ণে। এমনটা দাবি করেছেন অস্ট্রেলিয়ান বিশেষজ্ঞরা। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ভূমিকম্পের তীব্র কম্পনের ফলে ভাঙা পাথরের মধ্যে তরল ধাতু চাপে ও তাপে স্বর্ণে রূপান্তিরত হয়।

অস্ট্রেলিয়ার ইউনিভার্সিটি অব কুইন্সল্যান্ডের ভূপদার্থবিদ অধ্যাপক ডিওন ওয়েদারলি ভূমিকম্পে পানির সোনায় পরিণত হওয়া নিয়ে একটি মডেল বানিয়েছেন। সেই মডেলে দেখানো হয়েছে, কীভাবে ভূমিকম্পের তীব্র কম্পনে পাথর ও ধাতু চাপে-তাপে সোনায় রূপান্তরিত হয়।

গত বছরের নেচার জিওসায়েন্স জার্নালে এই মডেল নিয়ে একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। সেখানে ডিওন ওয়েদারলি জানান, ভূমিকম্পের ফলে পানির সোনায় পরিণত হওয়া একটি প্রাকৃতিক উপায়। তবে পরীক্ষাগারে কৃত্রিমভাবে পানিকে সোনায় রূপান্তর সম্ভব হলেও স্বাভাবিক ভূমিকম্পে ভূপৃষ্ঠের ওপর এই সোনা সৃষ্টি সম্ভব নয়।

ডিওন ওয়েদারলি এ বিষয়টি ব্যাখ্যা করেন তাঁর পানি থেকে সোনা তৈরির বিশেষ মডেলের সাহায্যে। সেখানে দেখানো হয়, ভূমিকম্পে কীভাবে সাগরতলায় বড় ধরনের চ্যুতির সৃষ্টি হয়। এই চ্যুতির ফলে সৃষ্ট বড় ফাটল সঙ্গে সঙ্গে পানি দিয়ে ভরে যায়। এই ফাটলগুলো যত বড় হয়, ততই এটি ভূ-অভ্যন্তরের লাভার কাছাকাছি পৌঁছায়। আর অতি উচ্চ তাপমাত্রার লাভায় থাকা সিলিকা, কার্বন ডাইঅক্সাইড, খনিজ স্ফটিক পানির অক্সিজেনের সংমিশ্রণে এসে সোনা উৎপন্ন করে।

বিশেষজ্ঞরা আরও দাবি করেছেন, পৃথিবীর মোট স্বর্ণের ৮০ শতাংশ ভূমিকম্পের ফলে তৈরি হয়েছে। তিন বিলিয়ন বছর আগে ভূমিকম্পে অনেক নদীর জলপর্বত তৈরির সময় প্রবল চাপে ধাতুতে রূপান্তরিত হয়ে পর্যায়ক্রমে মূল্যবাণ সোনায় পরিণত হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.