যে ২ টি অভ্যাসের কারণে সর্ম্পকে ফাটল ধরে। জেনে রাখা উচিত

যে অভ্যাসের জন্য সর্ম্পকে ফাটল

মাঝে মাঝে একজনের কিছু খারাপ অভ্যাসের দ্বারা আরেকজনের সম্পৰ্ক নষ্ট হয়।বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে এই অভ্যাস থাকলে সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যায়।

বন্ধু বা বান্ধবীর কোনো কিছু আপনার পছন্দ না হলে সেই বিষয়ে তার সঙ্গে খোলাখুলি কথা বলতে হবে। কোনো সিদ্ধান্ত তার ওপর চাপানোর চেষ্টা করবেন না।

কথা বার্তার ধরন

ছোট কথা বার্তার মাধ্যমে কঠিন কথাবার্তায় চলে গেলে সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যায়। তাই কোনো সমস্যা থাকলে সেটা মুখোমুখি বলাটা অনেক ভালো। সঙ্গীকে না জানিয়ে নিজেদের সম্পর্কে নিয়ে হতাশার ব্যাপারটা কখনো সবার সামনে প্রকাশ করবেন না। যা আপনার সঙ্গী এই ব্যাপারে অস্বস্তি বোধ করতে পারে।

সুখী দাম্পত্য জীবন

সুখী দাম্পত্য জীবন গোড়ার কয়টি সহজ উপায় রয়েছে। কোনো দাম্পত্য জীবন প্রথম থেকেই পরিপূর্ণ সুখের হয় না।

দাম্পত্য জীবনে সুখী হতে হলে হলে দুজনেরই একে অপরের প্রতি বিশ্বাস এবং শ্রদ্ধা রাখতে হবে বেশী। অনেক দম্পতির দেখা যায় ভালো দাম্পত্য জীবনের একটি ছক মেইন্টাইন করেন। আবার অনেকেই বিবাহিত জীবনকে শান্তভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন না।

সুখী দাম্পত্য জীবন পেতে করনীয় কাজ

শ্রদ্ধাবোধ প্রত্যেক ভালো দাম্পত্য জীবনের একটি সু-অভ্যাস, সুখী দাম্পত্য জীবন এটার অংশ। তবে শুধু এই নয় যে সঙ্গী বা সঙ্গিনীর প্রতি শ্রদ্ধাবোধ থাকতে হবে, নিজের প্রতিও থাকতে হবে।

সঙ্গ একজন আরেকজনের প্রতি মনোসংযোগ এবং নির্ভশীলতা বাড়ায়। কিন্তু মানসিক সমর্থনের অভাবে ধীরে ধীরে সঙ্গীর উপর চাপ বাড়তে থাকে। এর ফলে সম্পর্কে অবনতি হবে।

৩। খুশি থাকা-খুশি রাখার চেষ্টা করা

সঙ্গীর মেজাজকে ভালো রাখতে মজার কোনো কাজ করতে পারেন। এটা আপনার সম্পর্ককে অন্য মাত্রায় পৌঁছে দেবে। নিজের খুশি থাকার বিষয়গুলো বাহ্যিক কারণের সঙ্গে যুক্ত করা এবং সঙ্গীর উপর নির্ভর করা উচিত না।

৪। ভালো মুহূর্ত উপভোগ করা

একে অন্যের প্রাপ্তি স্বীকারের জন্য ভালো মুহূর্তগুলো উদযাপন করুন। সময় করে দীর্ঘ ভ্রমণে বেরিয়ে পড়ুন।সব কিছু এক সঙ্গে করতে হবে এটা নয়। প্রকৃতপক্ষে অন্যের আগ্রহের দিকে খেয়াল রাখতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.