সুন্দরী মেয়ে থাকার পরও ওই গ্রামে বিয়ে করতে চায় না ছেলেরা

গ্রামটি একেবারে গ’ণ্ডগ্রাম নয়। যোগাযোগ ব্যব’স্থাও ভালো। গ্রামের মেয়েগুলোও সু’ন্দরী। তারপরও এ গ্রামে ছেলেরা বিয়ে ক’রতে চায় না।

জা’না গেছে, বানরের উৎ’পাতে ভারতের ভোজপুরের রতনপুর গ্রামে কেউ বিয়ে ক’রতে চায় না। বানরের আ’ক্রমণের চেয়ে তারা নি’রাপদে থাকতেই বেশি পছ’ন্দ করে। আর তাই যখন রতনপুর গ্রাম থেকে বিয়ের প্র’স্তাব নিয়ে আসে, সে সময় বর এবং তার পরিবার সুস্প’ষ্ট এ কারণ দে’খিয়ে ঘ’টককে বি’দায় করে দেয়।

গ্রামে বা’সিন্দাদের তুলনায় বানরের সংখ্যা অনেক বেশি এবং বানরের দল গ্রামবাসীদের সবসময় আত’ঙ্কের মধ্যে রা’খে। যে কোনো অ’নুষ্ঠান, বিয়ে বা জ’ন্মদিন এমনকি শ্রা’দ্ধ অনুষ্ঠানেও বানরের দল হা’না দিতে দে’রি করে না। খাবার ন’ষ্ট করে। তা’ড়িয়ে দিলে উ’ল্টো তে’ড়ে এসে তু’লকালাম কা’ণ্ড ঘ’টায়। এই অ’নাকাঙ্ক্ষি’ত প’রিস্থিতি এড়াতে পাত্রপক্ষ ওই গ্রামে যেতে চায় না।

স্থা’নীয় প্র’শাসন বি’পর্যয় রো’ধে য’থাসাধ্য চেষ্টা করেছে। কিন্তু বানরের ক্র’মবর্ধমান সংখ্যার কারণে তারা সফল হয়নি। বিশেষ করে কোনো আয়োজন উপল’ক্ষ্যে যখন ভালো-মন্দ খাবার তৈরি করা হয় তখন বানরগুলো হাম’লা চালায়। অ’তীতেও এ গ্রামে এভাবে অনেক বিয়ের অ’নুষ্ঠান ভণ্ডুল হয়ে গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.