‘উকিল বাপ’ কি শরীয়তসম্মত?

প্রশ্ন: বিয়ের জন্য অনেকে উকিল বাবা মেনে থাকেন, এটি কি শরীয়তসম্মত?

উত্তর: শরীয়তের দৃষ্টিতে উকিল বাপ বলে কিছু নেই। মেয়ের বাবা যতদিন জীবিত আছেন ততদিন তিনিই অভিভাবক। তিনি না থাকলে আত্মীয়দের মধ্যে কে কিভাবে অভিভাবক হবে তাও শরীয়তে বলা আছে।

তবে মেয়ের অভিভাবকের নির্দেশে তার অনুপস্থিতিতে তার পক্ষ থেকে ইজাব কবুলের জন্য কাউকে প্রতিনিধি নির্ধারণ করলে তাকে শরীয়তের দৃষ্টিতে উকিল বলা হয়।

উকিল অর্থ প্রতিনিধি, মুখপাত্র। এই উকিল কখনোই বাবা হতে পারেনা। এবং অনাত্মীয় কেউ উকিল হওয়ার দ্বারা তার সঙ্গে কোন ধরণের আত্মীয়তাও তৈরী হয়না।

যদি মেয়ের গাইরে মাহরামদের কাউকে উকিল বানানো হয়ে থাকে তাহলে সে আজীবন গাইরে মাহরামই থাকবে।

উকিল হওয়ার দ্বারা বিধান পরিবর্তিত হবেনা। বিবাহের আকদ শেষ হওয়ার সাথে সাথেই তার প্রতিনিধিত্বের মেয়াদও শেষ হয়ে যায়।

তাই মুসলিম নারীদের জন্য তথাকথিত সামাজিকতার দোহাই দিয়ে আজীবন উকিলের সাথে দেখা দেয়া অকাট্যভাবে হারাম। প্রয়োজন ছাড়া উকিল নির্ধারণের যে রেওয়াজ আছে তাও পরিত্যাগ করা উচিত।

আড়ও পড়ুন

জেনে নিন সেহরি ও রোজার দুটি মাসয়ালা

আব্দুল্লাহ আল মামুন, বনশ্রী, ঢাকা
প্রশ্ন: গোসল ফরজ অবস্থায় সেহরি খাওয়া যাবে কি?

উত্তর: সহবাসের পর খাওয়া-দাওয়া ও অন্যান্য কাজের পূর্বে গোসল করে নেওয়া উত্তম। তবে জরুরি নয়। গোসল করা ছাড়াও খাওয়া যায়।

নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে দুভাবেই বর্ণিত আছে। তাই গোসল ফরজ অবস্থায় সেহরি খেতে পারবে।

তথ্যসূত্র: মুসলিম শরিফ, হাদিস নং-২৫৯২, কিতাবুল ফাতাওয়া, খণ্ড-৩, পৃষ্ঠা-৪২৮।

আব্দুর রহমান, সিঙ্গাপুর

প্রশ্ন: রোজা অবস্থায় স্বপ্নদোষ হলে, রোজা কি ভেঙ্গে যাবে?

উত্তর: স্বপ্নদোষ মানুষের নিয়ন্ত্রণের বাইরে। তাই স্বপ্নদোষের কারণে রোজা ভঙ্গ হবে না।

তথ্যসূত্র: সুরা বাকারা, আয়াত নং-২৮৬

Leave a Reply

Your email address will not be published.