রাতকে আরও রোম্যান্টিক করতে যেভাবে সাজাবেন ঘর

প্রেম করার জন্য শুধু মনের মতো সঙ্গী পেলেই হয় না। দরকার হয় উপযুক্ত পরিবেশও। তবেই তো ভালোবাসা জমবে। না হলে লাইট কিংবা ঘুটঘুটে অন্ধকারে কি আর ভালবাসাবাসি চলে? ভালোবাসা জমাতে গেলে পরিবেশ তৈরি করতে হয়। আজ রাতে না হয় সেভাবেই সারপ্রাইজ দিন আপনার সঙ্গীকে।

বালিশ :বিছানা যে বালিশে সাজাবেন সেটি হোক না হৃদয় আকারের। যদি বাড়িতে না থাকে, তাহলে বাজার থেকে এমন দু’টো বালিশ কিনেও নিতে পারেন। তবে অবশ্যই রং সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে। রং অবশ্যই হতে হবে লাল। কারণ এক্ষেত্রে লালের আবেদন আছে।

মোমবাতি :মোমবাতি সবসময় রোম্যান্সের আমেজ আনে। সুন্দর মোমদানির মধ্যে মোমবাতি জ্বালিয়ে রাখুন। বাকি ঘর অন্ধকার করে দিন। ওই আলো আঁধারির খেলায় আপনার সঙ্গী মজে যেতে বাধ্য হবে।

উপহার:এমন দিনে উপহার কিন্তু মাস্ট। দামী হতে হবে এমন নয়। এমন দিনে চাই রোম্যান্টিক উপহার। যদি আপনার সঙ্গী বই পছন্দ করে তবে নির্দ্বিধায় কিনে ফেলুন কোনও রোম্যান্টিক গল্প বা উপন্যাসের বই।

তার সঙ্গে থাকতে পারে এক বক্স চকোলেট। নাহলে গোলাপ কিংবা পছন্দের কিছু ফুল। কিন্তু গোলাপ যেন হয় লাল রঙের হয়। কারণ প্রেম জাগাতে লাল গোলাপের বিকল্প নেই।

পরের দিনের সকালের নাস্তা:আমেজ কি শুধু রাতের জন্যই। প্রেম তো সকালে আরও ফুরফুরে মেজাজে হতে পারে। তাই সুন্দর রাতের পর যদি সুন্দর সকাল চান, তবে নিজে কষ্ট করে একটু তাড়াতাড়ি উঠে তার জন্য চা বানিয়ে ফেলুন। কারণ সকালে ঘুম থেকে উঠে মুখের সামনে চা পেলে এমনিতেই মন ভাল হয়ে যাবে সঙ্গির। তা যদি নিজের কাছের মানুষের হাতে বানানো হয়, তাহলে তো কথাই নেই।

এমনিতেই আগের রাতের সুন্দর অভিজ্ঞতার রেশ তখনও কাটবে না।তার উপর যদি সকালেও এমন সারপ্রাইজ আসে, তাহলে গোটা বিষয়টাই জমে ক্ষীর।

Leave a Reply

Your email address will not be published.