ঘরের সৌন্দর্য বর্ধনে গাছের ব্যবহার

মন ভালো আর পরিবেশ সুস্থ রাখতে গাছের যে জুড়ি নেই, তা  আমরা সবাই জানি। করোনার এই সময়ে  মন এই ভালো তো এই খারাপ। অনেকে আবার আছেন ফুরফুরে মেজাজের জন্য সবুজ গাছে গাছে ভরেছেন ঘরের প্রতি কোন। তাই আপনিও কাজে লাগাতে পারেন এই গ্রিন থেরাপি। যাতে মনও ভালো থাকবে, সুন্দর লাগবে প্রতিটি সময়।

কিভাবে সাজাবেন ঘর

অভ্যর্থনা কক্ষ

সোফার দুই পাশে ইনডোর পাম রাখতে পারেন। তবে এর উচ্চতার দিকে খেয়াল রাখতে হবে। সোফার পাশে যেহেতু থাকবে তাই ৪ থেকে ৫ ফুট উচ্চতার বেশী না হলে ভালো হয়।বসার ঘরের জানালায় মালতীলতা রাখলে অনেক সুন্দর লাগবে। গাছ বেড়ে উঠলে ডালপালা ছড়িয়ে দিন গ্রিলের মধ্য দিয়ে যাতে ঘর আলো করে ফুটবে রঙিন ফুল।

মূল ঘর  

ঘরের সদর দরজার পাশে অনেকেরই জুতো রাখার ব্যবস্থা রাখেন। তার উপরে বেশ কয়েকটা গাছ রেখে দিতে পারেন। দরজার দুপাশে জায়গা করে রাখতে পারেন কয়েকটা পাতাবাহারের গাছ। আর যদি জায়গা বেশি থাকে তাহলে একটা গুল্মজাতীয় গাছ রাখতে পারেন। যাতে করে ঘরে ঢুকেই ভালো অনুভূতি পাবেন। 

পড়ার টেবিল 

পড়ার টেবিলের জায়গা করে দিন সবুজের সমারোহে । মাঝেমাঝে সবুজের দিকে তাকালে চোখে শান্তি এবং মনের বিশ্রামও হয়। দেখতে সুন্দর জিনিস সব সময়েই মন ভালো করে, বেশী শক্তির জোগান দেয়। মানি প্ল্যান্ট রাখতে পারেন কাচের বোতলে। তবে মানি প্ল্যান্ট বাড়তে শুরু করলে তার ডালপালা সরিয়ে দিতে হবে জানালার দিকে। পড়ার জায়গায় তা শাখাপ্রশাখা বিস্তার করলে অগোছালো লাগবে।

শয়নকক্ষ 

বেডরুমে গাছ রাখতে চাইলে পিস লিলি রাখতে পারেন। তবে শোয়ার ঘরে জানালায় একটা জুঁই বা বেল ফুলের গাছ রাখলে অনেক ভালো লাগবে। হালকা সুবাসে ঘর ভরে উঠবে আর মনকেও শান্ত করবে। রুমের আয়তন অনুযায়ী কয়টা গাছ রাখবেন, তা ঠিক করতে হবে।

ডাইনিং স্পেস

খাবার টেবিলে ছোট গাছ রাখা যেতে পারে। ডাইনিং টেবিলের পাশে  চাইলে উচ্চতায় বড় আকারের পাম রাখুন। ডাইনিং রুমে পর্যাপ্ত জায়গা থাকলে বার্ড অব প্যারাডাইস, বেগোনিয়া ইত্যাদি গাছ রাখতে পারেন। তাতে যেন একটু আলো পড়ে সে খেয়াল রাখতে হবে।

বারান্দা

বারান্দায় কোনও গাছেই কোন বাধা নেই। টমেটো, বেগুন থেকে শুরু করে বুগেনভিলিয়া, স্ট্রিং অব পার্লস ইত্যাদি নিজের পছন্দ অনুযায়ী যে কোন গাছ ঝুলিয়ে দিতে পারেন। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.