বিয়ে না হলে ভুলেও এই ৬ টি কথা কাউকে বলবেন না।

বিয়েটা অবশ্যই জীবনের খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। জন্ম ও মৃ’ত্যুর পর বিয়েটাই একজন মানুষের জীবনের সবচেয়ে বড় ঘটনা। তবে হ্যাঁ, অনেকেই কোনও না কোনও কারণে বিয়ে করেন না। কেউ বিয়ে স্বেচ্ছায় না করলে আলাদা বিষয়।

কিন্তু কেউ যখন চাইছেন, কিন্তু শত চাওয়া বা চেষ্টা সত্ত্বেও তাঁর বিয়েটা হচ্ছে না, তখন ব্যাপারটি অন্যরকম হয়ে দাঁড়ায়। এবং কাছের মানুষরাও তখন নানারকম মন্তব্য করেন। একবার কি ভেবে দেখেছেন, এসব শুনতে তাঁদের কেমন লাগে? চলুন, জেনে নিই এমন কি কি কথা যেগুলো মোটেই বলা চলবে না। বিয়ে না হলে ভুলেও এই ১৫টি কথা কাউকে বলবেন না:-

১. “বয়স হয়ে যাচ্ছে তো, এরপর বর/কনে পাবে না!” -তিনি যাচ্ছেন বয়স হচ্ছে। অযথা সেটা মনে করিয়ে দেবার কোন প্রয়োজন নেই।

২. “একটা প্রে’মও করতে পারলে না? আজকাল তো প্রে’মেরই চল…” -প্রে’ম করতে পারলে কি আর বিয়ে না করে বসে থাকতেন? এমনও তো হতে পারে যে প্রে’মের স’ম্পর্ক ছিল ও সেটি ব্যর্থ হয়েছে।

৩. “বিয়ের বয়স তো পার হয়ে যাচ্ছে তোমা’র।” -বিয়ের বয়স বলে আসলে কিছু নেই। একজন মানুষ যখন নিজেকে তৈরি মনে করেন, সেটিই তাঁর বিয়ের বয়স।

৪. “এর চাইতে বেশি দেরি করলে তো বাচ্চা হবে না।” – এসব বলে অযথা মন ভেঙে দেয়ার কোন মানে নি। চিকিৎসা ব্যবস্থা আজকাল অনেক উন্নত, বয়স হলেও সেটা আজকাল বিষয় না।

৫. “তোমা’র বিয়ে না হওয়ার কারণটা কী’?” -নিজেই ভেবে দেখু’ন,কেউ নি অন্য কারো কাছে নিজের ত্রুটির কথা বলতে ভালোবাসে?

৬. “ছে’লে/মে’য়েদের কী’ভাবে পটাতে হয় আমা’র কাছ থেকে শিখে নাও…” -আগ বাড়িয়ে যেচে এসব পরাম’র্শ দেয়ার মানে নিজেকেই ছোট করা।

৭. “ভালো ঘট’কের সাথে যোগাযোগ করো।” -যার বিয়ে হচ্ছে না, মা’থা তাঁকেই ব্যথা করতে দিন। আপনার উপদেশ দেবার দরকার নেই

৮. “তোমা’র চেহারা হয়তো পছন্দ হয় না।” -একটা মানুষের চেহারা সুন্দর কি অ’সুন্দর, সেটা নিয়ে খোটা দেয়াটা নিচু শ্রেণীর অভদ্রতা।

৯. “চিন্তা করো না, তোমাকে বেশি বয়স্ক দেখায় না।” এটা বলে উল্টো মনে করিয়ে দেয়া হয় যে তোমা’র বয়স বেশি।

১০. “বেশি বাছাবাছি করতে যেও না। যাকে পাও, বিয়েটা করেই ফেলো।” -বিয়ে হচ্ছে না বলে যাকে তাকে বিয়ে করতে হবে এমন পরাম’র্শ ভুলেও দেবেন না কাউকে।

১১. “তোমা’র মত বয়সে আমা’র সংসার-সন্তান ছিল।” -সবার জীবন একরকম হয় না। তাই অহেতুল তুলনা করবেন না।

১২. “বাইরে যাও, লোকের সাথে মেলামেশা করো। দেখো কাউকে পটাতে পারো কিনা।” -এটাও ভীষণ সস্তাদরের উপদেশ।

১৩. “আমি শুনেছি বেশি বয়সে বিয়ে করলে অনেক সমস্যা হয়।” -যে মানুষটার বিয়ে হচ্ছে না, এমনিতেই তাঁর মন ভেঙে আছে। অযথা আরও ভ’য় দেখানোর কোন মানে নেই।

১৪. “যৌ’বন তো শেষ-ই, আর কবে বিয়ে করবে?” – নিজেই ভালো করে ভেবে দেখু’ন তো, এমন একটা কথা আপনাকে কেউ বললে কেমন লাগবে?

১৫. “বিয়ে হচ্ছে না বলে মন খা’রাপ কোরো না” -এই কথাটি উল্টো আরও মন খা’রাপ করিয়ে দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.