নারীর চুড়ি পরার পেছনের এই রহস্য আগে জানতেন কি?

চুড়ি ছাড়া বাঙালি নারীর হাতের সৌন্দর্য যেন ফুটেই ওঠে না। তবে কখনো কি ভেবে দেখেছেন? নারীরা শুধু সাজসজ্জার জন্যই চুড়ি পড়ে নাকি এর পেছনে রয়েছে কোনো রহস্য!

প্রাচীনকাল থেকে এমন অনেক রীতি চলে আসছে যা নিয়ে সাধারণত কোনো প্রশ্ন তোলা হয় না। ঠিক যেমন, মেয়েরা হাতে চুড়ি পরে। বিশেষত বিবাহিত মেয়েদের ক্ষেত্রে হাত খালি রাখার নিয়ম নেই। অর্থাৎ দুই হাত ভর্তি করে চুড়ি পরাই নিয়ম।

এই রীতি কবে থেকে চলে আসছে তার কোনো ঠিক নেই। কারো হাতে কাঁচের চুড়ি, কারো আবার স্বর্ণ বা ইমিটেশনের। অর্থাৎ হাতে কিছু পরে থাকাটা জরুরি। কিন্তু কেন এই নিয়ম? কেন চুড়ি পরতে হয় মেয়েদের?

প্রাচীন এই রীতির পেছনেও রয়েছে কিছু বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা। বলা হয় আগে সাধারণত পুরুষেরা জমি ও জঙ্গলে কাজ করত। যাতে তাদের পেশীর কাজ অনেক বেশি হত।

আর মেয়েরা সাধারণত বাড়ির কাজকর্ম করত। খুব শক্ত কোনো কাজ মেয়েদের করতে হতো না। পরিশ্রমও হতো অপেক্ষাকৃত কম।

আর এই কম শারীরিক কাজই বাড়ায় রক্তচাপ। যাতে মানুষ অধৈর্য হয়ে পড়ে। আর সেই চাপ কমাতেই নারীদের চুড়ি পরতে বলা হতো।

তবে চুড়ির সঙ্গে রক্তচাপের কি সম্পর্ক? আমরা জানি পালস রেট মাপার জন্য কবজিতে চাপ দিয়ে দেখা হয়। সবসময় হাতে চুড়ির চাপ থাকলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.