যে শখগুলো আমাদের বুদ্ধিমান করে তোলে

শখ করে আমরা অনেক কিছুই করে থাকি। কেউ কেউ বাগান করেন, কেউ নানান ধরণের জিনিসপত্র জমান, আবার কেউ রান্না করার শখও রাখেন। একেকজন মানুষের একেক ধরণের শখ থাকে। শখ পূরণের জন্য অনেকেই দেশ বিদেশ পর্যন্ত ঘুরে বেড়ান। অনেকের কাছে শখের মূল্য অনেক বেশি। আবার অনেকেই ভাবেন শখের পেছনে সময় নষ্ট করা একেবারেই উচিৎ নয়।

শখকে একেবারে হেলাফেলার জিনিস ভাবার কিছুই নেই। অনেক ধরণের শখ রয়েছে যা আমাদের অনেক বেশি উপকার করে। এমন অনেক শখ আছে যা আমাদের বুদ্ধিমত্তা এবং চিন্তা করার ক্ষমতা ও মস্তিষ্কের উন্নতিতে অনেক বেশি সাহায্য করে। চলুন তবে দেখে নেয়া যাক এমনই কিছু শখকে যা আমাদের করে তুলবে বুদ্ধিমান।

অন্য কোনো ভাষা শেখা

অনেকেই শখ করে নিজ মাতৃভাষা ভিন্ন অন্য ভাষা শেখেন। এই শখটি অনেক ভালো একটি শখ। অন্য একটি ভাষা যখন আমরা শিখতে যাই তখন তা আমাদের মস্তিষ্কের উন্নতিতে সাহায্য করে। ভাষাটি শেখার পাশাপাশি আমরা আরেকটি জিনিস লাভ করি। তা হলো আমারে মস্তিষ্কের তীক্ষ্ণতা। এছাড়াও আরেকটি ভাষা শিখতে যাওয়ার সময় আমরা সেই ভাষাভাষীর মানুষগুলো সম্পর্কেও পড়ি যা আমাদের আরও বেশি জ্ঞানী এবং বুদ্ধিমান করে তোলে।

ভিডিও গেম খেলা

বাচ্চারা ভিডিও গেম নিয়ে বসলে অভিভাবকগণ বেশ অসন্তুষ্ট হন। তাদের কাছে এটি সময় নষ্ট বাদে কিছুই নয়। কিন্তু এই ভিডিও গেম খেলার শখটি বাচ্চাদের নানা ভাবে বুদ্ধিমান করে তুলতে অনেক বেশি সাহায্য করে। কোনো সমস্যা সমাধানের চিন্তা, সিন্ধান্ত গ্রহনের ক্ষমতা এবং চিন্তাশক্তি উন্নত করতে এই সকল ভিডিও গেমের জুড়ি নেই। তবে অবশ্যই অতিরিক্ত মাত্রার অ্যাকশনধর্মী গেম থেকে বাচ্চাদের দূরে থাকাই ভালো। পাজল গেম, রেসিং গেম ইত্যাদি ধরণের খেলা বেশি উপকারী।

কোনো জিনিস জমানো

অনেকেই ডাকটিকিট, কয়েন, স্যুভনির ইত্যাদি জমিয়ে থাকেন। এই শখটিও বেশ ভালো একটি শখ। কোনো জিনিস তা সে যাই হোক না কেন তা জমানোর অভ্যাস আমাদের করে তুলে অনেক বেশি জ্ঞানী ও বুদ্ধিমান। ধরুন আপনার ডাকটিকিট বা কয়েন জমানোর শখ রয়েছে। আপনি যেখানেই যাবেন সেখানকার কিছু না কিছু নিয়ে আপনি জানার চেষ্টা করবেন। সেখানে নিজের শখ পূরণের জিনিস খুঁজবেন। এতে করে আপনার গানের পরিধি বাড়বে এবং আপনার জানার আগ্রহ এবং চেষ্টা আপনার মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতাকে বাড়াবে।

বই পড়া

অনেকেই বই পড়াকে শখ হিসেবে নিয়ে থাকেন। নানান লেখকের নানান ভাষার বই পড়ার শখ থাকে অনেকের। এই শখটিকে ভালো না কেউ বলতে পারবেন না। বই পড়া তা সে যে ধরণের বইই হোক না কেন তা আমাদের মস্তিস্ক এবং মনকে সতর্ক এবং একটি নির্দিষ্ট লক্ষ্যে রাখতে সাহায্য করে। এছাড়াও নানা ভাষা নানা ধরণের বই পড়া আমাদের জ্ঞানের পরিধি বাড়ায়।

বাদ্যযন্ত্র বাজানো
অনেকেই শখ করে গিটার, তবলা, হারমোনিয়াম, হারমোনিকা, বাঁশি ইত্যাদি বাদ্যযন্ত্র বাজান। এতে করে মানসিক শান্তি পান অনেকে। কিন্তু এই শখটি শুধুমাত্র মানসিক শান্তিই প্রদান করে না সেই সাথে আপনাকে করে তোলে বুদ্ধিমান। যখন আপনি একটি বাদ্যযন্ত্র বাজান তখন আপনার মনোযোগ শুধুমাত্র সেই যন্ত্রেই থাকে। এতে করে একটি নির্দিষ্ট দিকে লক্ষ্য ধরে রাখার ক্ষমতা বাড়ে। এছাড়াও এখানে শেখার মতো অনেক কিছুই পাওয়া যায় যা মস্তিষ্ককে কর্মক্ষম রাখে এবং বুদ্ধিমান করে তোলে আপনাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *