কখন মেয়েরা মি-লি’ত হওয়ার জন্য পা’গল হয়ে ওঠে?

মেয়েরা তাদের জীবন সঙ্গীর সঙ্গে মি’লন করতে চায়৷ কিন্তু বুক ফাটলেও মুখ ফুটে বলতে লজ্জা পায়। তাই জেনে নিন মেয়েরা কখন মি’লনের জন্য পাগল হয়ে ওঠে৷ ১. মেয়েদের চাহিদা ছেলেদের ৮ ভাগের এক ভাগ। কিশোরী এবং টিনএজার মেয়েদের যৌ’ন ইচ্ছা সবচেয়ে বেশী। ১৮ বছরের পর থেকে মেয়েদের চাহিদা কমতে থাকে, ৩০ এর পরে ভালই কমে যায়।

২. ২৫ এর উর্দ্ধ মেয়েরা স্বামীর প্রয়োজনে কর্ম করে ঠিকই কিন্তু একজন মেয়ে মাসের পর মাস কর্ম না করে থাকতে পারে কোন সমস্যা ছাড়া।৩. মেয়েরা রোমান্টিক কাজকর্ম কর্ম চেয়ে অনেক বেশী পছন্দ করে। বেশীর ভাগ মেয়ে গল্পগুজব হৈ হুল্লোর করে কর্মর চেয়ে বেশী মজা পায়। অনেকের ধারণা কিশমিশ খেলে দাঁতের ক্ষতি হয় অনেক। কিন্তু এটি ভুল ধারণা। কিশমিশ খাওয়া আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অ’ত্যন্ত জরুরী।

৪. মেয়েরা অর্গ্যা’জম করে ভগাংকুরের মাধ্যমে, মেয়েদের অর্গ্যা’জমে কোন বী”র্য বের হয় না। তবে পেটে প্রস্রাব থাকলে উত্তেজনায় বের হয়ে যেতে পারে মেয়েদের বী”র্য’পাত বলে কিছু নেই। কেউ যদি দাবী করে তাহলে সে মিথ্যা বলছে।৫. ভগাংকুরের মাধ্যমে অর্গ্যা’জমের জন্য মি’লনের কোন দরকার নেই। ৬. লম্বা পুং অঙ্গ চেয়ে মোটা পুং অঙ্গ মজাবেশী। লম্বা পুং অঙ্গ বেশীরভাগ মেয়ে ব্যাথা পায়।৭. মেয়েদের যোনির সামান্য ভেতরেই খাজ কাটা গ্রুভ থাকে,

পেনিসের নাড়াচাড়ায় ঐসব খাজ থেকে মজা তৈরী হয়। এজন্য বড় পেনিসের দরকার হয় না।বাচ্চা ছেলের পেনিসও এই মজা দিতে পারে।অনেক ছেলে কিংবা মেয়েরা চায় বিপরীত লিংঙ্গের মানুষটি তার সঙ্গে মিলিত হোক।

বিবাহিত জীবন উপভোগ করার পাশাপাশি কর্মক্ষেত্রেও কাজ চালিয়ে যেতে হয় নিয়মিত। সবকিছু সামলাতে গিয়ে শরীর দুর্বল হয়ে যেতে পারে। এজন্য বিবাহিত জীবন আরও সুন্দর করতে এবং নিজেকে ফিট রাখতে কার্যকর ভূমিকা পালন করে এই খাবারগুলো। ১) ডিম- শরীরের দুর্বলতা, ক্লান্তি দূর করতে ডিমের জুড়ি নেই। তাই আপনার প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *