তারুণ্য ধরে রাখার গোপন রহস্য

বয়সের সঙ্গে সঙ্গে ত্বকে ও শরীরে সেই ছাপ সুস্পষ্ট হতে শুরু করে।যদি আপনি তারুণ্য ধরে রাখতে চান তাহলে প্রতিদিনের রুটিন পরিবর্তন করা জরুরি। কিছু অভ্যাস আছে যা আপনাকে তারুণ্য ধরে রাখতে সাহায্য করবে।যেমন-

প্রথমেই ওজন কমাতে হবে। শরীর থেকে বাড়তি মেদ ঝরাতে নিয়মিত শরীরচর্চা করা প্রয়োজন। সেই সঙ্গে মাংসপেশী সবল রাখতে নিয়মিত কিছু ভারী জিনিস ওঠানো-নামানোর চর্চা করতে পারেন।

দেহে প্রোটিণের ঘাটতি হলে মাংসপেশীর ক্ষয় হতে পারে। বিশেষ করে ৫০ বছর বয়সের পর শরীরে বাড়তি প্রোটিণের প্রয়োজন হয়। তারুণ্য বজায় রাখতে এবং সুস্থ থাকতে দিনবেলার খাবারে প্রোটিণ যুক্ত করুন। শুধুমাত্র রাতে প্রোটিণ খাবার পরিবর্তে তিনবেলায় অল্প পরিমাণে প্রোটিণযুক্ত খাবার খান।

শরীরে ভিটামিন ডি’র ঘাটতি হলে বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে হাড় ও পেশী ক্ষয় হতে শুরু করে। এ কারণে শরীরে ভিটামিন ডি’য়ের ঘাটতি পূরণ করতে প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে সূর্যের আলো শরীরে লাগান । সেই সঙ্গে ভিটামিন ডি যুক্ত খাবার খান।

গ্রিণ টিতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরের নানাবিধ উপকার করে এবং তারুণ্য ধরে রাখে। অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসম্পন্ন ডালিম প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় যোগ করুন। এটি ত্বককে ফ্রি রেডিকেল থেকে রক্ষা করে তারুণ্যতা বজায় রাখবে। এছাড়া ত্বক ও বয়সে তারুণ্য ধরে রাখতে নিয়মিত অন্যান্য অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসম্পন্ন খাবার খান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!