চুল পড়া কমাতে ২টি আয়ুর্বেদিক তেল

চুলের পুষ্টির জন্য তেলের বিকল্প নেই। তেল চিটচিটে ভাবের জন্য অনেকে চুলে তেল লাগাতে চায় না। এতে চুলের সবচেয়ে বড় ক্ষতি করে থাকে। তেল চুলের গোড়া থেকে পুষ্টি জুগিয়ে চুলকে সিল্কি, শাইনি করে তোলে।

 

 

 

 

আমরা সাধারণত বাজারের নারকেল তেল, বাদাম তেল ব্যবহার করে থাকি। আয়ুর্বেদিক তেল চুলের জন্য বেশ উপকারী। এটি চুল পড়া রোধ করে চুলকে স্বাস্থ্যজ্বল ঝলমলে করে তোলে।

চুল পড়া কমাতে ২টি আয়ুর্বেদিক তেলঃ

১. আয়ুর্বেদিক আমলা তেলঃ

১০০ গ্রাম আমলকি পাউডার
২৫০ গ্রাম বিশুদ্ধ নারকেল তেল
৪ লিটার পানি

 

 

 

 

এক তৃতীয়াংশ আমলকির গুঁড়ো পানির সাথে মিশিয়ে সিদ্ধ করে নিন। অল্প আঁচে মিশ্রণটি নাড়তে থাকুন পানি ১ লিটারে কমে না আসা পর্যন্ত। এবার পানিটি একটি সুতির কাপড়ে ছেঁকে নিন। বাকী আমলকির গুঁড়ো পানির সাথে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন।

 

 

 

 

 

এখন একটি বড় পাত্রে আগের ছাকা আমলকি পানি এর সাথে আমলকির পেস্ট এবং নারকেল তেল মিশিয়ে নিন। এবার পাত্রটি চুলায় ফুটতে দিন। ফুটে ঘন হয়ে আসলে চুলা থেকে নামিয়ে ফেলুন। ঠান্ডা হয়ে এলে গ্লাস কন্টেইনারে সংরক্ষণ করুন। ভাল ফল পেতে সপ্তাহে দুইবার ব্যবহার করুন।

 

 

 

 

 

২. তুলসী আয়ুর্বেদিক তেলঃ

নতুন তুলসী পাতা অথবা তুলসী পাউডার
বিশুদ্ধ নারকেল তেল
পানি
মেথি
কয়েকটি তুলসী পাতা অথবা কয়েক চামচ তুলসী পাতা গুঁড়ো পানির সাথে মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করে নিন। যদি তুলসী পাতা ব্যবহার করেন তবে তুলসী পাতা পানি দিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিন।

 

 

 

 

 

 

এবার ১০০ মিলিলিটার নারকেল তেলের সাথে তুলসী পাতার পেস্ট মিশিয়ে চুলায় জ্বাল দিন। এর সাথে কয়েকটি মেথি দিয়ে দিন। কিছুক্ষণ জ্বাল দেওয়ার পর নামিয়ে ফেলুন। ঠাণ্ডা হয়ে এলে এটি কাঁচের জারে সংরক্ষণ রাখুন। সপ্তাহে দুইবার এই তেল মাথায় ম্যাসাজ করুন। তারপর শ্যাম্পু করে ফেলুন।

 

 

 

 

 

 

টিপসঃ

আয়ুর্বেদিক তেল ঠান্ডা স্থানে রাখুন। এতে কোন রাসায়নিক উপাদান ব্যবহার না করার কারণে রোদের তাপে তেল নষ্ট হয়ে যেতে পারে। ব্যবহার পর খুব ভাল করে তেলের ঢাকনাটি লাগিয়ে রাখুন। এই তেল আপনার চুল পড়া রোধ করবে, নতুন চুল গজাতে সাহায্য করবে। এমনকি আপনার নিষ্প্রাণ চুলকে স্বাস্থ্যোজ্বল করে তুলবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!