আনন্দময় জীবনের জন্য ৫টি হিউমার এক্সারসাইজ

হাসি হচ্ছে সবচেয়ে ভাল ঔষধ। আপনি যত হাসবেন তত সুস্থ থাকবেন। কারণ হাসি আপনাকে যুক্ত করে ইতিবাচকতার সাথে, আনন্দের সাথে, জীবনের সাথে।

কিন্তু এমনি এমনি তো হাসা যায় না। হাসির কারণ দরকার হয়। আপনি জানেন কি আপনার হাসির কারণ আপনি নিজেই তৈরি করতে পারেন এবং জীবনে নিয়ে আসতে পারেন উচ্ছলতার বন্যা? কীভাবে? ব্যবহার করুন আপনার হিউমার।

হিউমার বিজ্ঞানী উইলবাল্ড রুচ এবং তার টিম এই বিষয়ে দীর্ঘদিন গবেষণা পরিচালনা করেন। তার গবেষণাটি তুলে ধরেছেন মনোবিজ্ঞানী । এই গবেষণায় তিনি দেখেন, হাস্যরসের চর্চা আমাদেরকে একজন ভালো মানুষে পরিণত করে, ডিপ্রেশনের উপরেও এর চমৎকার প্রভাব রয়েছে।

মানুষের জীবনে হিউমারের প্রভাব বুঝতে তারা এলোমেলো এবং পরিকল্পিত অনেকগুলো পরীক্ষানিরীক্ষা করেন। ৫ টি হিউমার এক্সারসাইজ তারা ১ সপাহের জন্য চর্চা করতে বলেন তাদেরকে, যাদের উপর এই পরীক্ষা চলছিল-

১। মজার ঘটনা
আজকের দিনের ৩টি সবচেয়ে মজার অভিজ্ঞতা লিখুন। একই সাথে এটাও লিখুন, এই ঘটনাগুলো আপনার মাঝে কি অনুভূতি তৈরি করেছিল।

২। গুণে দেখুন
প্রতিদিন কয়টি মজার ঘটনা ঘটছে তা গুণে রাখুন। যত ছোট ঘটনাই হোক না কেন তা যেন আপনার তালিকা থেকে বাদ না পড়ে। সেগুলো কীভাবে ঘটছে খেয়াল করুন। সংক্ষেপে লিখে রাখুন।

৩। হাস্যরস প্রয়োগ করুন
সারাদিনে হাস্যরস তৈরি করে এমন সব বিষয় খেয়াল করুন। কৌতুক পড়ুন। কমেডি ফিল্ম দেখুন। আপনার বন্ধুদের মাঝে যে খুব ভাল মজা করতে পারে তার সাথে কথা বলে বলুন। কমিকস এর বই ও খুব কাজে দেবে। এভাবে বাড়বে আপনার কৌতুক করার ক্ষমতা।

৪। মজার বিষয় সংগ্রহ করুন
আপনার জীবনের মজার ঘটনাগুলো লিখুন। জড়ো করুন আনন্দময় স্মৃতিগুলোকে। কোন ঘটনায় হাসি থামছিলই না আপনার! কোন স্মৃতি ছিল সুখের একইসাথে কৌতুকের! লিখে রাখুন সেগুলো।

৫। স্ট্রেস কমাতে কাজে লাগান
আপনার সবচেয়ে স্ট্রেসফুল কোন স্মৃতি মনে করুন। সেটা লিখুন আর ভাবুন মজায় মজায় কিভাবে সেই স্ট্রেস কমানো সম্ভব ছিল!

খুব সাধারণ কিছু কাজ। কিন্তু এগুলোই আপনার জীবনকে বদলে দিতে পারে। রুচের গবেষণার ফলাফল কিন্তু তাই বলে। প্রথম ৩টি কাজ টানা ১ সপ্তাহ অনুশীলন করলে অন্তত ৬ মাস তা আপনাকে স্ট্রেসফ্রি রাখবে এবং জীবনের আনন্দকে বাড়িয়ে দেবে। হয়ত একসময় আপনি পরিণত হবেন হাসিখুশী ঝলমলে একজন মানুষে।

ভেবে দেখুন তো, উপরের কাজগুলোর মাঝে কোনটা আপনার ভাল লেগেছে? আজকে থেকেই সেটা চর্চা করুন আপনার নিজের জীবনে। ১ সপ্তাহ প্রতিনিয়ত এই চর্চা চালিয়ে যান। দেখুন, কিভাবে আপনার চরিত্রকেই বদলে দেবে এই কাজগুলো। নিজের জীবনে নিজেই করুন সুখের চাষাবাদ। শুধু প্রয়োজন আপনার স্বদিচ্ছার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!